প্রকৃত মুমিন বান্দা হতে সহায়তা করার জন্য তুমি কী কী উদ্যোগ নিতে পারাে।

Class 8 Islam Assignment Answer, Government Assignment, Islam Assignment, DHSE Gov bd Assignment, ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা এ্যাসাইমেন্ট, ৮ম শ্রেণির এ্যাসাইমেন্ট, ৮ম শ্রেণির ইসলাম এ্যাসাইমেন্ট সমাধান, এ্যাসাইমেন্ট ১০০% সঠিক উত্তর, 1st Week Class 8 Islam Assignment Answer 2021, Class 6 Islam Assignment Solution (1st Week) DSHE Assignment 2021

কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে ২০২১ শিক্ষাবর্ষের পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ ও মূল্যায়ন নির্দেশ শ্রেণি: ৮ম

Assessment-Concept

Assignment Info

Answer

  • এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ: ০১
  • অধ্যায় ও বিষয়বস্তুর শিরােনাম: প্রথম অধ্যায়: আকাইদ
  • পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত পাঠ নম্বর ও বিষয়বস্তু:  পাঠ-১ (ঈমান), পাঠ- ২ (নিফাক), পাঠ-৩ (আলআসমাউল হুসনা)
  • এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ: মনে কর তােমার ঘনিষ্ঠ একজন সহপাঠীর আচরণে মুনাফিকের লক্ষণ পরিলক্ষিত হয়, তাকে প্রকৃত মুমিন বান্দা হতে সহায়তা করার জন্য তুমি কী কী উদ্যোগ নিতে পারাে- এ সম্পর্কিত একটি কর্মপরিকলপনা তৈরি করাে।
  • নির্দেশনা: পাঠ্যপুস্তক থেকে উক্ত বিষয়ে ধারণা নেয়া যেতে পারে প্রয়ােজনে অভিভাবকের সহযােগিতা নেয়া যেতে পারে; েমােবাইল বা যে কোন ভার্চুয়াল মিডিয়ার মাধ্যমে বিষয় শিক্ষকের সাথে যােগাযােগ করা যেতে পারে; ইন্টারনেটের সাহায্য নেয়া যেতে পারে; অ্যাসাইনমেন্ট স্বহস্তে লিখতে হবে;

Solve-Share

1st Week Class 6 Islam Assignment Answer 2021

Class-8-Islam-Assignment

প্রশ্ন: প্রকৃত মুমিন বান্দা হতে সহায়তা করার জন্য তুমি কী কী উদ্যোগ নিতে পারাে

মনে কর তােমার ঘনিষ্ঠ একজন সহপাঠীর আচরণে মুনাফিকের লক্ষণ পরিলক্ষিত হয়, তাকে প্রকৃত মুমিন বান্দা হতে সহায়তা করার জন্য তুমি কী কী উদ্যোগ নিতে পারাে- এ সম্পর্কিত একটি কর্মপরিকলপনা তৈরি করাে।

সংকেত:

১। সহপাঠীর কোন কোন আচরণে মুনাফিকের লক্ষণ তার উল্লেখ;
২। উক্ত আচরণগুলাে কেন ক্ষতিকর তার ব্যাখ্যা;
৩। উক্ত বিষয়ের কুরআন ও হাদিসের উদ্ধৃতি;
৪। সহপাঠীর মুনাফিকী আচরণ দূর করার উপায়;
৫। সহপাঠীকে মুমিন হওয়ার জন্য তােমার পদক্ষেপ;

উত্তরঃ নিচের ৮ম শ্রেণির ইসলাম ১ম সপ্তাহের এ্যাসাইমেন্ট এর ১০০% সঠিক সমাধান দেওয়া হলো।

নিফাক শব্দের অর্থ ভন্ডামি, কপটতা, প্রতারণা, দ্বিমুখী নীতি ইত্যাদি। ইসলামী পরিভাষায় মুখে ঈমানের স্বীকার ও অন্তরে অবিশ্বাস করাকে নিফাক বলা হয়। যে ব্যক্তি এরূপ করে তাকে বলা হয় মুনাফিক। মুনাফিকরা সাধারনত সামাজিক ও পার্থিব লাভের জন্য এরূপ করে থাকে। তারা মুসলমান ও কাফের উভয় দলের সাথেই থাকে। প্রকাশ্যে তারা নিজেদের মুসলমান বলে দাবি করে। কিন্তু গোপনে তারা ইসলামকে অস্বীকার করে। নিফাক হলো নৈতিকতা ও মানবিকতার আদর্শের বিপরীত কাজ। মুনাফিকের লক্ষণ বা নিদর্শন তিনটি। যথা- যখন কথা বলে মিথ্যা বলে, ওয়াদা করলে তা ভঙ্গ করে এবং যখন তার নিকট কোন কিছু গচ্ছিত রাখা হয়, তখন তার খিয়ানত করে।

মুনাফিকী আচরণগুলো খুবই ক্ষতিকর। কারণ- নিফাক জঘন্যতম পাপ। এটা মানুষের চরিত্র ধ্বংস করে ফেলে। নিফাকের ফলে মানুষ অন্যায় ও অশ্লীল কাজে অভ্যস্ত হয়ে যায়। ফলে মানুষের নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ বিনষ্ট হয়। নিফাকের দ্বারা মানুষের মধ্যে অবিশ্বাস ও সন্দেহের সৃষ্টি হয়। ফলে মানব সমাজে মারামারি, হানাহানি ও অশান্তির সৃষ্টি হয়। মুনাফিকরা ইসলামের চরম শত্রু। এরা ইসলাম ও মুসলমানদের গোপন কথা ও দুর্বলতা প্রকাশ করে দেয়। এরা মুসলমানদের মধ্যে মতানৈক্য ও মারামারি সৃষ্টির চেষ্টা করে। উক্ত বিষয়ের কুরআন ও হাদিসের উদ্ধৃতিসমূহ-

মুনাফিকদের অবস্থা সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন-

وَاِذَا لَقُوا الَّذِيْنَ اٰمَنُوْا قَالُٓوْا اٰمَنَّا وَاِذَا خَلَوْا اِلٰى شَيٰطِيْنِهِمْ قَالُٓوْا اِنَّا مَعَكُمْ اِنَّمَا نَحْنُ مُسْتَهْزِئُوْنَ

অর্থ: “যখন তারা (মুনাফিকরা) ঈমানদারদের সাথে মিলিত হয় তখন বলে আমরা ঈমান এনেছি। আর যখন তারা গোপনে তাদের শয়তানদের সাথে মিলিত হয় তখন বলে, আমরা তো তোমাদের সাথেই আছি। আমরা শুধু তাদের সাথে ঠাট্টা-তামাশা করে থাকি।” (সূরা আল-বাকারা, আয়াত ১৪)

মুনাফিকদের চরিত্র সম্পর্কে আল্লাহ পাক বলেন-

وَاللّٰهُ يَشْهَدُ اِنَّ الْمُنٰفِقِيْنَ لَكٰذِبُوْنَ

অর্থ: “আর আল্লাহ সাক্ষ্য দেন যে, মুনাফিকরা নিশ্চয়ই মিথ্যাবাদী। ” (সূরা আল-মুনাফিকুন, আয়াত ১)

রাসুলুল্লাহ (স.) বহু হাদিসে মুনাফিকদের চরিত্র বর্ণনা করেছেন। একটি হাদিসে বর্ণিত হয়েছে-

اٰيَةُ الْمُنَافِقِ ثَلَاثٌ: اِذَا حَدَّثَ كَذَبَ، وَاِذَا وَعَدَ اَخْلَفَ، وَاِذَا اؤْتُمِنَ خَانَ

অর্থ: “মুনাফিকের নিদর্শন তিনটি। যখন কথা বলে মিথ্যা বলে, ওয়াদা করলে তা ভঙ্গ করে এবং যখন তার নিকট কোন কিছু গচ্ছিত রাখা হয়, তখন তার খিয়ানত করে।

নিফাকের পরিণতি সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেন-

اِنَّ الْمُنٰفِقِيْنَ فِى الدَّرْكِ الْاَسْفَلِ مِنَ النَّارِ

অর্থ: ” নিশ্চয়ই মুনাফিকদের স্থান জাহান্নামের সর্বনিম্ন স্তরে।” (সূরা আন-নিসা, আয়াত ১৪৫)
সহপাঠীর মুনাফিকী আচরণ দূর করার উপায়:

কথা বলার সময় সত্য কথা বলবে, মিথ্যা কথা বলবে না। কাউকে কথা দিলে তা রক্ষা করবে। আমানত রক্ষা করবে। যেমন কারো কাছে কোনো জিনিস ও সম্পদ আমানত রাখলে তা যথাযথভাবে সংরক্ষণ করবে এবং ফেরত দিবে। কারো সাথে কথা দিলে তা রক্ষা করবে। এছাড়াও রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিনষ্ট করবে না। সহপাঠীর মুনাফিকী আচরণ দূর করা ও মুমিন হওয়ার পদক্ষেপ সহপাঠীকে মুমিন হওয়ার জন্য আমার পদক্ষেপ: মুনাফিকরা দুনিয়াতে ঘৃণিত ও নিন্দিত হয়ে থাকে। আখিরাতেও তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের কঠোর আযাব।

সহপাঠীকে মুমিন হওয়ার জন্য নিফাকের কুফল ও পরিণতি সম্পর্কে জানাবো। তাকে বোঝাবো যে, নিফাককারীকে তথা মুনাফিককে কেউই বিশ্বাস করে না। মুনাফিকের স্থান জাহান্নামের সর্বনিম্ন স্তরে। হাদিসে যেসব কাজ মুনাফিকের নিদর্শন হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে সেগুলো তাকে বর্জন করতে বলবো। খাঁটি মুমিন হিসেবে জীবনযাপন করতে উদ্বুদ্ধ করবো।

মূল্যায়ন রুব্রিক্স

নিচের নির্ণায়কের ভিত্তিতে শিক্ষক মূল্যায়ন করবেন এবং রেকর্ড সংরক্ষণ করবেন। প্রয়ােজনীয় ক্ষেত্রে ফিডব্যাক প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের শিখন নিশ্চিত করবেন।

অতি উত্তম:

১। কুরআন ও হাদিসের উদ্ধৃতি আরবিতে লিখা
২। ধারাবাহিকতা বজায় থাকা
৩। পর্যায় উপলব্ধি করে যৌক্তিক বিশ্লেষণ
৪। লেখায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলতা
৫। বানান ও বাক্য গঠনে সঠিকতা

উত্তম:

১। কুরআন ও হাদিসের উদ্ধৃতির অনুবাদ
২। আংশিক ধারাবাহিকতা বজায় থাকা
৩। পর্যায় উপলব্ধি করে আংশিক যৌক্তিক বিশ্লেষণ
৪। লেখায় আংশিমাত্রায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলত
৫। বানান ও বাক্য গঠনে সঠিকতা

ভালো:

১। কুরআন অথবা হাদিসের উদ্ধৃতির অনুবাদ
২। কিছুটা ধারাবাহিকতা বজায় থাকা
৩। পর্যায় উপলব্ধি করে আংশিক বিশ্লেষণ
৪। লেখায় আংশিকমাত্রায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলত
৫। বানান ও বাক্য গঠনে সঠিকতা

অগ্রগতি প্রয়ােজন:

১। কুরআন অথবা হাদিসের উদ্ধৃতির অনুবা অভাব।
২। ধারাবাহিকতা বজায় না থাকা
৩। পর্যায় উপলব্ধি করে বিশ্লেষণ না করা
৪। লেখায় নিজস্বতা ও সৃজনশীলতা না থাকা
৫। বানান ও বাক্য গঠনে সঠিকতা না থাকা

DSHE Assignment 2021

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *